এনবি নিউজ : টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ক্যাচ মিসের মাশুল দিল বাংলাদেশ। বাংলাদেশের দেয়া ১৭২ রানের টার্গেটে ব্যাট করে ৫ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে লঙ্কানরা।

শারজায় চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়েও বাজে ফিল্ডিং এবং অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ভুল সিদ্ধান্তের কারণে এমন হার মনে করছেন অনেকেই।

ম্যাচের যখন ১৩ ওভার, তখন শ্রীলঙ্কা ৯০ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছে, ওইসময় আফিফ হোসেনের মতো পার্টটাইমারের হাতে বল কেন তুলে দিলেন রিয়াদ। এরপর আবারো নিজে কেন বোলিং করতে আসলেন? বিশেষ করে যখন সাকিবের দুই ওভার, মুস্তাফিজের তিন ওভার বাকি?

সাইফউদ্দিন এক ওভারে ২২ খেয়েছেন; হ্যা লিটন দাস দুবার ক্যাচ ফেলেছেন। তবে ১০০ রানের আগে শ্রীলঙ্কার ৪ উইকেট ফেলে দেওয়ার পর ওইসময় পার্টটাইমারকে বল দিয়ে, তার আগে-পরে নিজে দুই ওভার করে, ওই তিন ওভারে ৩৬ রান দিয়ে ম্যাচের ‘মোমেন্টাম’ শ্রীলঙ্কার হাতে তুলে দেওয়ায় নিজের সিদ্ধান্তের ভুলের দায়টি কি রিয়াদ দেখবেন না?

এর আগে বাংলাদেশের দেয়া ১৭২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারেই উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। ইনিংসের চতুর্থ বলে নাসুম আহমেদের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন লঙ্কান তারকা ওপেনার কুশাল পেরেরা। দলীয় ২ রানে ফেরেন তিনি।

এরপর চারিথ আসালঙ্কাকে সঙ্গে নিয়ে ৬৯ রানের জুটি গড়েন পাথুম নিসাঙ্কা। ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা নিসাঙ্কা ও আসালঙ্কার মধ্যকার জুটির বিচ্ছেদ ঘটান সাকিব আল হাসান। এই অফস্পিনারের বলে বোল্ড হওয়ার আগে ২১ বলে ২৪ রান করেন পাথুম নিসাঙ্কা।

চার নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে তৃতীয় বলেই বোল্ড হয়ে ফেরেন আভিস্কা ফার্নান্দো। তাকে রানের খাতা খুলতে দেননি সাকিব।

সাকিবের পর লঙ্কান শিবিরে আঘাত হানেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তার বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন ওয়ানেন্দু হাসারঙ্গা ডি সিলভা। তার বিদায়ের মধ্য দিয়ে ৯.৪ ওভারে ৭৯ রানে ৪ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা।

এরপর আফিফ হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান দুইবার ভানুকা রাজাপক্ষকে আউট করার সুযোগ তৈরি করেন। কিন্তু লিটন দাস দুইবার ক্যাচ ফেলে দেওয়ায় চারিথ আসালঙ্কা-রাজাপক্ষ দলকে জয়ের দুয়ারে নিয়ে যান।

শেষ দিকে শ্রীলঙ্কার জয়ের জন্য ১০ বলে প্রয়োজন ছিল মাত্র ৭ রান। খেলার এমন সময় নাসুম আহমেদের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন ভানুকা রাজাপক্ষ। তার আগে মাত্র ৩১ বলে তিন চার ও তিন ছক্কায় খেলেন ৫৩ রানের ঝড়ো ইনিংস। তার এমন নান্দনিক ইনিংসে ভর করেই জয় পায় শ্রীলঙ্কা।

এ টি