এনবি নিউজ : ২০২১ সালে প্রথম ইউনেস্কো-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সৃজনশীল অর্থনীতির জন্য আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছে উগান্ডা ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান এমওটিআইভি ক্রিয়েশনস লিমিটেড।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফ্রান্সের প্যারিসে ইউনেস্কোর সদর দপ্তরে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে ভাষণ দেওয়ার সময় বিজয়ীর নাম ঘোষণা করেন এবং তাদের হাতে পুরস্কার ও প্রশংসাপত্র তুলে দেন।

বিজয়ীদের প্রশংসা করে শেখ হাসিনা বলেন, ২০২১ সালের ইউনেস্কো-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সৃজনশীল অর্থনীতিতে প্রথম পুরস্কার পাওয়ার জন্য আমি এমওটিআইভি ক্রিয়েশনস লিমিটেডকে (উগান্ডা) অভিনন্দন জানাই।

ইউনেস্কো-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু পুরস্কারের উদ্দেশ্য হলো সৃজনশীল অর্থনীতির ক্ষেত্রে যুব উদ্যোক্তাদের উন্নীত করে এমন উদ্ভাবনী প্রকল্প বা কর্মসূচি প্রণয়ন এবং বিতরণকারী ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, একটি সত্তা বা  বেসরকারি সংস্থার ব্যতিক্রমী উদ্যোগকে স্বীকৃতি দেওয়া এবং পুরস্কৃত করা।

সৃজনশীল অর্থনীতি পুরস্কারের জন্য জমা দেওয়া ৬৯টি মনোনয়নের মধ্যে এমওটিআইভি নির্বাচিত হয়েছিল এবং সৃজনশীল অর্থনীতিতে যুব উদ্যোক্তাকে উৎসাহিত করার জন্য উদ্ভাবনী কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার পাবে। উগান্ডার কাম্পালায় অবস্থিত এমওটিআইভি একটি সমন্বিত সৃজনশীল স্টুডিও, যা সরঞ্জাম ও প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে একটি প্রভাবপূর্ণ এবং টেকসই উপায়ে সহযোগিতাকে উৎসাহিত করে।

এটি পণ্য এবং ফ্যাশন ডিজাইনের মতো বিভিন্ন ডোমেইন জুড়ে কাজ করে, উদ্যোক্তাদের তাদের ব্যবসাগুলো পরিমার্জন ও পরিমাপ করতে সহায়তা করে। এমওটিআইভি’র একটি ডিজাইন একাডেমি রয়েছে, যা তরুণ উদ্ভাবক, ডিজাইনার এবং ব্যবসায়িক মালিকদের জন্য শেখার সুযোগ প্রদান করে।

শিক্ষার্থীরা পেশাদার অভিজ্ঞতার সঙ্গে এমওটিআইভি পরামর্শদাতাদের সঙ্গেও জুটি বেঁধে থাকেন, যাঁরা তাঁদের নিজ নিজ ক্ষেত্রের জন্য গাইডেন্স এবং সেরা কৌশল ও অনুশীলন প্রদান করতে পারেন।

নকশাকারকদের লিঙ্গ সমতার প্রতি খুব দৃঢ় প্রতিশ্রুতি রয়েছে। এমওটিআইভি’র প্রতিটি প্রকল্পে নারীদের অংশগ্রহণের লক্ষ্যমাত্রা থাকে ৭০ শতাংশ।