এনবি নিউজ : নীলফামারীর সদর উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের পুটিহারি মাঝাপাড়া গ্রামে একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে জঙ্গি সন্দেহে পাঁচ জনকে আটক করেছে র‌্যাব। শনিবার (৪ ডিসেম্বর) র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক খন্দকার আল মঈন জানান, আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

আটকরা হলেন- জাহেদুল ইসলাম (২৮), ওহেদুল ইসলাম (২৬), ওয়াহেদ আলী (৩০), আব্দুল্লাহ আল মামুন সুজা (২৬) ও নুরুল আমিন (২৮)।

এদিকে, বাড়ির মালিক শরিফুল পলাতক রয়েছেন। তিনিও জঙ্গি কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত বলে জানিয়েছে র‍্যাব। স্থানীয়দের দাবি, পলাতক শরিফুলের স্ত্রী মিনা ও শাশুড়িকে আটকদের সঙ্গে রংপুর র‌্যাব কার্যালয়ে নেওয়া হয়েছে।

খন্দকার আল মঈন জানান, আটকরা সবাই জেএমবির সদস্য। তাদের মধ্যে ওয়াহেদ আলী বোমা তৈরির প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত। শরিফুলও জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ত এবং তাকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

তবে এলাকাবাসী ও পরিবারের সদস্যদের দাবি, ‘শরিফুল জঙ্গি কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত এতে আমরা সবাই হতবাক।’

এর আগে, রাত ৩টা থেকে জেলা সদরের মাঝাপাড়া পুটিহারি গ্রামের ওই বাড়িটি ঘিরে রাখে র‍্যাব। স্থানীয় থানা পুলিশের সদস্যরা আশপাশে অবস্থান নেন।

শনিবার সকালে রংপুর থেকে র‌্যাবের বোমা ডিসপোজাল ইউনিটের একটি টিম নীলফামারী সদরের ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। এরপর ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) আইন ও গণমাধ্যম শাখার (লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইং) পরিচালক আল মঈন নীলফামারীতে এসে পৌঁছান। তারপর শুরু হয় অভিযান।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার সহকারী পরিচালক এএসপি আ ন ম ইমরান খান বলেন, ‘ঘটনাস্থলে আইইডি সদৃশ একটি বিস্ফোরক নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে।’
এ টি