এনবি নিউজ : আলোকস্বল্পতার কারণে ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনের শেষ সেশনের খেলা মাঠে গড়ায়নি। এজন্য আজ দ্বিতীয় দিনের খেলা এগিয়ে আনা হয় আধা ঘণ্টা।

গতকাল শনিবার ঢাকা টেস্টের প্রথম দিন আগে ব্যাট করতে নেমে দুই দুইকেটে ১৬১ রান নিয়ে দিন শেষ করে পাকিস্তান। দিন শেষে উইকেটে ৬০ রানে অপরাজিত আছেন বাবর আজম। তাঁর সঙ্গে ৩৬ রানে অপরাজিত আজহার আলী।

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে বেশ সাবধানী ব্যাটিং শুরু করে বাবর আজমের দল। আগের ম্যাচের মতোই দুই ওপেনার আবিদ আলী এবং আব্দুল্লাহ শফিকের জুটি মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

প্রথম ৯ ওভার সামলেছেন বাংলাদেশের দুই পেসার—খালেদ আহমেদ ও ইবাদত হোসেন। দুজনে প্রথম স্পেলে তেমন কোনো পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি পাকিস্তানকে। প্রথম ৯ ওভারে স্কোরবোর্ডে ৩৪ রান তুলেছে অতিথিরা। এরপর স্পিন আক্রমণ আনে বাংলাদেশ। নিজের প্রথম স্পেলে আশা জাগান সাকিব আল হাসান। তবে, রিভিউ নিয়েও পারলেন না পাকিস্তানের শুরুর জুটি ভাঙতে।

পানি পানের বিরতির পর সাকিবের করা বল লেগে যায় শফিকের প্যাডে। জোরাল আবেদন তোলে বাংলাদেশ। আম্পায়ার এলবিডব্লিউর আবেদনে সাড়া না দিলে রিভিউ নেয় বাংলাদেশ। ট্র্যাকিংয়ে দেখা যায়, বল যেত অফ স্টাম্পের বাইরে দিয়ে যায়, ফলে রিভিউটি নষ্ট হয়। সে সময় ২১ রানে উইকেটে ছিলেন শফিক।

অবশেষে জমে যাওয়া পাকিস্তানের ওপেনিং জুটি ভাঙেন তাইজুল। ১৯তম ওভারে ওয়াইড ক্রিজ থেকে লেংথ বল ভেতরে ঢোকান তাইজুল। শফিকের ব্যাটের ফাঁক দিয়ে বল আঘাত হানে অফ স্টাম্পে। ১১১ বলে ভাঙে ৫৯ রানের জুটি। ৫০ বলে ২৫ রান করে ফিরেছেন শফিক। একইভাবে ৩৯ রানে আবিদকে বিদায় করেন তাইজুল। অভিজ্ঞ এ স্পিনারের জোড়া আঘাতে প্রথম সেশনে সমানে সমান লড়াই করে বাংলাদেশ।

তবে, শুরুর ধাক্কা সামলে দ্রুতই ঘুরে দাঁড়ায় পাকিস্তান। দ্বিতীয় সেশনে দারুণ জুটি উপহার দেন বাবর আজম ও আজহার আলী। লাঞ্চের পর এই জুটি ভাঙতে পারেনি বাংলাদেশ। মাঝে বৃষ্টির বাগড়ায় ২৫ মিনিট খেলা বন্ধ থাকে। এরপর মাঠে ফিরেও দারুণ ব্যাটিং করেন বাবর-আজহার। দ্বিতীয় সেশনে ২৬ ওভারে ৮৩ রান তুলেছে পাকিস্তান।

তৃতীয় সেশনে আলোর স্বল্পতার কারণে মাঠে নামতে পারেনি বাংলাদেশ ও পাকিস্তান। বেলা ৩ টা ৫ মিনিট থেকে এক ঘণ্টারও বেশি সময় অপেক্ষায় থাকে দুদল। এরপর আর মাঠেই গড়ায়নি তৃতীয় সেশনের খেলা। আলোর স্বল্পতার কারণে শেষ পর্যন্ত প্রথম দিনের খেলা বন্ধ হয়ে যায়।

বাংলাদেশের হয়ে বল হাতে ৪৯ রান দিয়ে দুই উইকেট নেন তাইজুল ইসলাম। ৩৩ রান দিয়ে উইকেটশূন্য ছিলেন চোট কাটিয়ে দলে ফেরা সাকিব আল হাসান। ইবাদত-মিরাজরাও ছিলেন উইকেট শূন্য।