এনবি নিউজ : গার্মেন্টসের শ্রমিকদের বিক্ষোভের মুখে রাজধানীর মিরপুর ১৪ নম্বরে দুটি মোটরসাইকেলে আগুন দেওয়া হয়েছে। মোটরসাইকেল দুইটির একটি পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের এসআই আলী হোসেনের ও অন্যটি স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা বাবুর বলে জানা গেছে।

আজ বুধবার সকাল ৮টা থেকে আশপাশের বিভিন্ন পোশাক কারখানার শ্রমিকরা একসঙ্গে জড়ো হতে থাকেন। সকাল ১০টার দিকে তারা পুরো সড়ক বন্ধ করেন।

রাজধানীর মিরপুর-১৩ নম্বর এলাকায় সড়ক অবরোধ করছেন পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। বিভিন্ন দাবির কথা জানিয়ে বেশ কয়েকটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা এ বিক্ষোভে অংশ নিয়েছেন।

এদিকে রাজধানীর ভাটারা এলাকায় সড়ক আটকিয়ে বিক্ষোভ করছেন গার্মেন্ট শ্রমিকরা। তাদের বিক্ষোভে কুড়িল বিশ্বরোড-বাড্ডা সড়কের দুই পাশে যান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে।

বকেয়া বেতনভাতা পরিশোধসহ বিভিন্ন দাবিতে আজ বেলা ১১টার দিকে সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকেন কুড়িল বিশ্বরোড এলাকার ওয়েমার্ট অ্যাপারেলস লিমিডেট কারখানার শ্রমিকরা। ৬০০ থেকে ৭০০ শ্রমিক সড়কে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিতে থাকেন।

প্রায় আড়াই ঘণ্টাব্যাপী চলা এই বিক্ষোভে সড়কের দুই পাশে যান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা এ সময় গাড়ি লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন।

পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু শ্রমিকরা দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত বিক্ষোভ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন।

শ্রমিকদের দাবি, গত দুই মাস ধরে তাদের বেতনভাতা বন্ধ রেখেছে গার্মেন্ট কর্তৃপক্ষ। তাদের বকেয়া বেতন দেওয়া হচ্ছে কিস্তিতে।

পরে বেলা দেড়টার দিকে মালিকপক্ষ দাবি পূরণের আশ্বাস দিলে শ্রমিকরা সড়ক ছেড়ে দেন।

ভাটারা থানার ওসি (তদন্ত) রফিকুল হক ঘটনাস্থল থেকে যুগান্তরকে জানান, মালিকপক্ষের সঙ্গে শ্রমিকদের সমঝোতা হওয়ার পর তারা সড়ক ছেড়ে দিয়েছে। আগামীকালের মধ্যে বকেয়া বেতন পরিশোধের আশ্বাস দিয়েছে মালিকপক্ষ। আমরা পরিস্থিতি দ্রুত নিয়ন্ত্রণে আনতে সচেষ্ট।
এ টি