এনবি নিউজ ডেস্ক : রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনে গণহত্যা চালাচ্ছেন বলে দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের আইওয়া অঙ্গরাজ্যে বক্তব্য দেওয়ার সময় ইউক্রেন প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি এ দাবি করেন। এ সময় ইউক্রেনে আরও বেসামরিক লোকজন হত্যা এবং দেশটির পূর্বাঞ্চলে নতুন রুশ আক্রমণের সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানান বাইডেন।

রাশিয়ার সামরিক অভিযান শুরুর পর ইউক্রেনের ঘটনা বর্ণনা করতে এবারই প্রথম ‘গণহত্যা’ শব্দটি ব্যবহার করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট। এর আগে পুতিনকে ‘যুদ্ধাপরাধী’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছিলেন বাইডেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, গত কয়েকদিন ধরেই ইউক্রেন অভিযোগ করে আসছিল, রাশিয়া গণহত্যা চালিয়েছে। তবে রাশিয়া বরাবরই সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র এতদিন রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ করলেও কখনো এটিকে ‘গণহত্যা’ বলেনি।

যুক্তরাষ্ট্রে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি প্রসঙ্গে বক্তব্য দিতে গিয়ে বাইডেন প্রথমবার গণহত্যার বিষয়টি উল্লেখ করেন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‌‘অর্ধেক পৃথিবী দূরে একজন স্বৈরশাসকের যুদ্ধ ঘোষণা এবং গণহত্যা করেছে কি না তার ওপর আপনার পারিবারিক বাজেট কিংবা আপনার ট্যাংক (গাড়ির) পূরণের সক্ষমতা- কোনটাই নির্ভর করা উচিত নয়।’

নিজের বক্তব্যের সমর্থনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘ইউক্রেনের মানুষের মধ্য থেকে দেশটির নাগরিক হতে চাওয়ার যে ইচ্ছা তা মুছে ফেলার চেষ্টা করছেন পুতিন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি এটিকে গণহত্যা বলেছি কারণ, এ বিষয়টি এখন দিবালোকের মতো স্পষ্ট এবং এটাও পরিষ্কার হয়ে গেছে যে-পুতিন মানুষের মধ্য থেকে ইউক্রেনের নাগরিক হতে চাওয়ার ইচ্ছা মুছে ফেলার চেষ্টা করছেন মুছে ফেলার চেষ্টা করছেন—এমন ঘটনাবলির প্রমাণ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।’

বাইডেন বলেন, ‘যদিও আমরা আইনের মাধ্যমে আন্তর্জাতিকভাবেই সিদ্ধান্ত নেব যে এটি গণহত্যা কিনা, তবে আমি নিশ্চিত যে বিষয়টি তাই-ই এবং আমার কাছে নিশ্চিতভাবে সে রকমটাই মনে হচ্ছে।’

অবশ্য ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের কাছে বুচা শহরে বেসামরিক লোকদের হত্যাকাণ্ডকে ‘প্রকৃত গণহত্যা’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। কিয়েভের কাছে অবস্থিত এই শহরটিতে যুদ্ধাপরাধ হয়েছে বলে ব্যাপক অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট দাবি করেন, রাশিয়ার দখলে থাকা অঞ্চলগুলোতে ‘প্রায় প্রতিদিন’ নতুন গণকবর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে।
এ টি