এনবি নিউজ : পদ্মা বহুমুখী সেতুর ওপর দিয়ে যান চলাচল শুরু হয়েছে অনেক আগেই। এবার অপেক্ষা সেতুর নিচ দিয়ে ট্রেন চলাচলের। অবশেষে সেই অপেক্ষারও শেষ হতে যাচ্ছে। পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের ভাঙ্গা থেকে পদ্মা সেতু পর্যন্ত প্রায় ৩১ কিলোমিটার রেলপথে পরীক্ষামূলক ‘ট্র্যাক কার’ বা ‘গ্যাংকার’ ট্রেন চালানো হয়েছে।

nagad-300-250
মঙ্গলবার বেলা ১১টায় ফরিদপুরের ভাঙ্গা স্টেশন থেকে পরীক্ষামূলক একটি ট্রেন পদ্মা সেতু পর্যন্ত পৌঁছেছে দুপুর ১টায়। ট্রেনটি বিশেষ আকৃতিতে নির্মিত একটি রেল ইঞ্জিন বিশেষ। এটি গ্যাংকার নামে পরিচিত।

এ সময় প্রকল্প পরিচালক আফজাল হোসেন এবং সেনাবাহিনীর ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষে মেজর জেনারেল এস এম জাহিদ আফজাল, পিডি বি. জে. সাইফ, বি. জে. মাহবুব, ডিসিসি ও আবুল কালাম আজাদ, সিআরইসির প্রকৌশলী মো. জহুরুল হক গ্যাংকারে ছিলেন।

ভাঙ্গা স্টেশন ম্যানেজার মো. শাহজাহান জানান, নতুন রেলপথ চালু হওয়ার আগে পরীক্ষামূলক এই গ্যাংকারটি মঙ্গলবার ভাঙ্গা থেকে শুরু করে পদ্মা সেতু পর্যন্ত ৩১ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে পদ্মা স্টেশন পার হয়ে পদ্মা সেতুর দক্ষিণে জাজিরার ভায়াডাক্টে পৌঁছায়।

৩১ কিলোমিটারের মধ্যে ৪ কিলোমিটার পাথরবিহীন এবং ২৭ কিলোমিটার পাথরসহ রেল লাইন বসে গেছে। এই রেল লাইন ভাঙ্গার পুরনো রেললাইনের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। কিছুদিন আগে এই পথের কাজ শেষ হয়। এবার চীনের তৈরি একটি গ্যাংকার এই ট্রাকে চালিয়ে দেখা হলো কার্যকারিতা।

কিছুটা ধীরগতিতে ট্র্যাক কারটি চালানো হয়েছে। প্রায় ২ ঘণ্টায় সেটি পদ্মা সেতুর ভায়াডাক্টে (সংযোগ সেতু) পৌঁছে বলে জানিয়েছেন প্রকৌশলী জহুরুল হক।

প্রসঙ্গত, ২০২৩ সালের ২৫ জুন ঢাকা-ভাঙ্গা রেলপথ উদ্বোধন হওয়ার কথা রয়েছে।

এ টি