এনবি নিউজ : নারায়ণগঞ্জের বন্দরে রেজিস্ট্রেশনবিহীন মোটরসাইকেলের কাগজপত্র চাওয়ায় মদ খেয়ে গভীর রাতে টহল ডিউটিরত পুলিশকে মারধরের খবর পাওয়া গেছে। বন্দরের মুছাপুর ইউপি চেয়ারম্যান মাকসুদের ছেলের নেতৃত্বে হামলা করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার গভীর রাতে বন্দরের কুড়িপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে চেয়ারম্যানের ছেলে মাহমুদুল হাসান শুভকে (৩২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে লাঙ্গলবন্দ বাসস্ট্যান্ডে টহল ডিউটিতে থাকা কামতাল তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশের ওপর এ হামলার ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার শুভ বন্দরের মুছাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাকসুদ হোসেনের ছেলে।

জানা গেছে, প্রতিদিনের মতো বুধবার রাত ১২টার দিকে কামতাল তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই শফিউল্লাহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে লাঙ্গলবন্দ বাসস্ট্যান্ডে টহল দিচ্ছিলেন। এ সময় রেজিস্ট্রেশনবিহীন মোটরসাইকেল আরোহীর পরিচয় জানতে চাইলে আরোহী চেয়ারম্যান ছেলে শুভর লোক পরিচয় দেয় এবং বিয়ে বাড়িতে এসেছেন বললে তাকে ছেড়ে দেন। মোটরসাইকেল নিয়ে চলে যাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যে মুছাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাকসুদ হোসেনের ছেলে মাহমুদুল হাসান শুভর নেতৃত্বে ১৫-২০ জনের একটি দল পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এসময় পুলিশের গাড়িচালক কনস্টেবলসহ ৫ পুলিশ সদস্য আহত হন। এ ঘটনায় পুলিশের এএসআই শফিউল্লাহ বাদী হয়ে বন্দর থানায় একটি মামলা করেন।

বন্দর থানার ওসি আবু বকর সিদ্দিক জানান, পুলিশের দায়িত্ব পালনে বাধা এবং পুলিশকে মারধরের ঘটনায় মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে মুছাপুর ইউপি চেয়ারম্যান মাকসুদের ছেলে মাহমুদুল হাসান শুভকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। গ্রেফতার শুভর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলাসহ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে।

এ টি